বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় | নবম - দশম শ্রেণি| EduaidBD.com

ভাষা আন্দোলন

১৯৪৭ সালের আগস্ট মাসে দ্বি-জাতি তত্বের উপর ভিত্তি করে পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তান মিলে পাকিস্তান রাষ্ট্রের সৃষ্টি হয় । পাকিস্তান সৃষ্টির আগে থেকেই এই রাষ্ট্রের ভাষা কী হবে তা নিয়ে বির্তক শুরু হয় । ১৯৩৭ সালে মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ মুসলিম লীগের দাপ্তরিকক ভাষা উর্দূ করার প্রস্তাব করলে ককাঙালিদের নেতা শে.রে. বাংলা এ. কে . ফজলুল হক এর বিরোধিতা করেন । ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্ম হলে ভাষঅ নিয়ে পুনরায় বির্তক শুরু হয় । ১৯৪৭ সালের ১৭ মে চৌধুরী খালিকুজ্জামান এবং জুলাই মাসে আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.জিয়াউদ্দীন আহমদ উর্দূকেক পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার দাবি জানালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ ও ড.মুহাম্মদ এনামুল হক সহ বেশ কয়েকজন বুদ্ধিজীবি এর বিরুদ্ধে প্রবন্ধ লিখে প্রতিবাদ জানান ।

১৯৪৭ সালে ককামরুদ্দীন আহমেদের নেতৃত্বে গণ আজাদী লীগ গঠিত হয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকক আবুল কাশেমের নেতৃত্বে গঠিত হয় তমদ্দুন মজলিশ । এই প্রতিষ্ঠান দুটি পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা হিসেবে বাংলাকে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করে । ১৯৪৭ সালের ডিসেম্বর মাসে করাচিতে অনুষ্ঠিত এক শিক্ষা সম্মেলনে উর্দূকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা ঘোষণা করলে পূর্ব পাকিকস্তানে তীব্র প্রতিবাদ শুরু হয় । বাংলাকে র্ষ্ট্রভাষা করার জন্য দাবি উঠে । লেখালেখি শুরু হয় এবং ডিসেম্বর মাসেই রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ নতুনভাবে গঠিত হয় ।

১৯৪৮ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান গণপরিষদের সদস্য ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত গণপরিষদের ভাষা হিসেবে বাংলাকে উর্দূ ও ইংরেজির পাশাপাশি ব্যবহারের দাবি জানান । ১৯৪৮ সালের ১৯ মার্চ পাকিস্তানের গর্ভনর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ঢাকায় আসেন । ২১ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে অনুষ্ঠিত জনসভায় দ্ব্যার্থহীন কন্ঠে ঘোষণা করেন , “ উর্দূই হবে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা । ” জিন্নাহর ঘোষণায় ছাত্রসমাজ প্রতিবাদ জানিয়েছিল । ১৯৫২ সালের ২৬ জানুয়ারি ঢাকার পল্টন ময়দানে পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দীন জিন্নাহকে অনুকরণ করে একই ঘোষণা প্রদান করেন । পূর্ব বাংলার ছাত্রসমাজ মাতৃভাষার জন্য আন্দোলন শুরু করলে ২০ ফেব্রুয়ারি ও ২১ ফেব্রুয়ারিকে এক ঘোষণায় সকল সভা - সমাবেশ , মিছিল একমাসের জন্য নিষিদ্ধ করে ১৪৪ ধারা জারি করা হয় । ২১ ফেব্রুয়ারি ছাত্রসমাজ ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে মিছিল নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজের সামনের দিকে বের হলে প্রথমে পুলিশ লাঠিচার্জ ও কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে । এক পর্যায়ে পুলিশ গুলি বর্ষণ করলে আবুল বরকত , জব্বার , রফিক , সালামসহ আরো অনেকে নিহত হয় ।

যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন

পাকিস্তান রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠার পর শাসসক দল মুসলিম লীগ ধীর্ঘদিন নির্বাচনের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ও প্রাদেশিক সরকার গঠনের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি । এছাড়া প্রাদেশিক সরকার নিয়ে কেন্দীয় সরকারের টালবাহানা পূর্ব বাংলার জনগনের কাছে স্পষ্ট হয়ে উঠে । পূর্ব বাংলার প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচনে মুসলিম লীওগর শোচনীয় পরাজয় ঘটানোর লক্ষে ১৯৫৩ সালের ১৪ নভেম্বর আওয়ামী লীগ যুক্তফ্রন্ট গঠন করার সিদ্ধান্ত নেয় । ২১ দফা প্রণয়ন শেষে ৪ টি শরীক দল নিয়ে যুক্তফ্রন্ট ১৯৫৩ সালের ৪ ডিসেম্বর গঠন করা হয় । দল ৪ টি হলো - আওয়ামী লীগ , কৃষক শ্রমিক পার্টি , নেজামে ইসলাম ও গনতন্ত্রী দল । ১৯৫৪ সালের মার্চ মাসে প্রাদেশিক পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় । নির্বাচনে জনগণ যুক্তফ্রন্টের ২১ দফাকে তাদের প্রাণের দাবি বলে বিবেচনা করে । নির্বাচনে যুক্তফ্রন্ট নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে । পূর্ব বাংলার প্রাদেশিক পরিষদের ২৩৭ টি আসনের মধ্যে যুকক্তফ্রন্ট ২২৩ টি , মুসলিম লীগ মাত্র ৯ টি আসন লাভ করে । বাকি আসন পায় অন্যরা । এই নির্বাচন পূর্ববাংলার জনগন পাকিস্তানের রাষ্ট্র কক্ষমতায় পশ্চিম পাকিস্তানিদের প্রভাব থেকে মুক্ত থাকার রায় প্রদান করেন ।


পেইজটি হালনাগাদ করণের কাজ চলছে ...

RELATED TOPIC :

CONTRACTS US

For our more information please contract us .
  • Gulzar Tower ( 4th ) floor , Chawkbazar , Chittagong .
  • 01787 - 36 92 12
  • info@eduaidbd.com
  • admin@eduaidbd.com
 bcs_preparation